• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১, ৮ আষাঢ় ১৪২৮
Bangla Bazaar
Bongosoft Ltd.

পদ্মায় ডুবে যাওয়া মাইক্রোবাস উদ্ধার, পরিচয় মিলেছে চালকের


নিজস্ব প্রতিবেদক | বাংলাবাজার প্রকাশিত: মে ১২, ২০২১, ১০:৩২ এএম পদ্মায় ডুবে যাওয়া মাইক্রোবাস উদ্ধার, পরিচয় মিলেছে চালকের
ছবি: সংগৃহীত

দৌলতদিয়ার ৫ নং ফেরিঘাটে মঙ্গলবার ঝড়ের আঘাতে পন্টুনের তার ছিড়ে সকাল সাড়ে ১১ টায় পদ্মা নদীতে একটি মাইক্রোবাস ডুবে যায়। টানা ২ ঘন্টা উদ্ধার তৎপরতা শেষে বেলা দেড়টার দিকে মাইক্রোটিকে উপরে তুলতে সক্ষম হন উদ্ধারকারী দল। তবে মাইক্রোর চালককে গাড়ির মধ্যে পাওয়া যায় নি। তাকে উদ্ধারের জন্য ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরি দল উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রেখেছেন।

ডুবে যাওয়া মাইক্রোবাসের মালিক ও চালকের পরিচয় পাওয়া গেছে। চালকের নাম মারুফ হোসেন (৪০)। তার বাড়ি সিলেট জেলায়। তবে তিনি ঢাকার রামপুরায় থাকতেন।মাইক্রোবাসের মালিকের নাম মাকসুদুর রহমান রিতু। তিনি ঢাকার কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা। ঢাকার একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি করেন। উদ্ধার হওয়া মাইক্রোবাস থেকে মালিকের নাম ও মোবাইল নম্বর উদ্ধার করে পুলিশ।

মাইক্রোবাসের মালিক মাকসুদুর রহমানের বলেন, দৌলতদিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. মুন্নাফ আলী শেখ।

তিনি বলেন, মাইক্রোবাসের মালিকের শ্যালক সোমবার বিদেশ থেকে ফেরেন। তার শ্যালককে গ্রামের বাড়ি চুয়াডাঙ্গায় পৌঁছে দিতে যান মারুফ। মারুফ তাকে চুয়াডাঙ্গায় পৌঁছে দিয়ে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে ঢাকায় ফিরছিলেন। কিন্তু পথে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
 
এর আগে রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক আনোয়ার হোসেন জানান,নদীতে হঠাৎ প্রচন্ড ঝড়ো-বাতাস শুরু হওয়ায় সৃষ্ট ঢেওয়ের আঘাতে পন্টুনের তার ছিড়ে যায়। এ সময় মাইক্রোবাসটি প্রচন্ড ঝাঁকুনিতে নদীতে পড়ে যায়। খবর পেয়ে প্রায় ৩০ মিনিটের মধ্যে রাজবাড়ী, গোয়ালন্দ ও পাটুরিয়া হতে ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও ডুবুরিদল উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। বেলা দেড়টার দিকে আমরা মাইক্রোটিকে উপরে তুলতে সক্ষম হই। এ সময় মাইক্রোর পেছনের ডালা ভাঙা ছিল। ধারনা ছিল ভেতরে কেও থাকলেও হয়তো ভাঙা অংশ দিয়ে বের হয়ে যেতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শী ঢাকা মিরপুর বাংলা কলেজের ছাত্র জাহিদ হাসান জানান, তিনি পাটুরিয়া ঘাট হতে শাপলা -শালুক ফেরিযোগে দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশ্যে আসছিলেন। ঘাটের কাছাকাছি আসলে তাদের ফেরিটি ঝড়ের কবলে পড়ে। চালক দক্ষতার সাথে ফেরিটি ৫নং ঘাটে ভেড়াতে সক্ষম হন।

এ সময় আমাদের চোখের সামনেই পন্টুনের তার ছিড়ে গেলে পন্টুনের উপর থাকা মাইক্রোবাসটি প্রচন্ড ঝাঁকুনিতে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে নদীতে পড়ে যায়। ডুবে যাওয়ার আগ মূহুর্তে মাইক্রোর চালক সাহায্যের জন্য হাত নাড়লেও তাকে সাহায্য করার মতো কোন অবস্থা কারো ছিল না। মাইক্রোটিতে আর কোন যাত্রী ছিল কিনা তা আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি।

ঘটনাস্থলে প্রশাসন, বিআইডব্লিউটিসি, বিআইডব্লিউটিএ এবং থানা ও নৌ-পুলিশের কর্মকর্তারা উপস্থিত রয়েছেন। খবর পেয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আজিজুল হক খান মামুন, এসিল্যান্ড রফিকুল ইসলাম, গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর, দৌলতদিয়া নৌ-পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ মুন্নাফ হোসেনসহ বিআইডব্লিউটিসি এবং বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তারা ঘটনাস্হলে পৌঁছান।