• ঢাকা
  • রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮
Bangla Bazaar
Bongosoft Ltd.

ঢাবির বৈষম্য রোধে ‍‍`সেভেন কলেজ টিচার্স এসোসিয়েশন‍‍` গঠন


ঢাকা কলেজ প্রতিনিধি | বাংলাবাজার প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১, ১১:১৮ পিএম ঢাবির বৈষম্য রোধে ‍‍`সেভেন কলেজ টিচার্স এসোসিয়েশন‍‍` গঠন
ছবি : সংগৃহীত

শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারী রাজধানীর সরকারি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হয়। অধিভুক্তির পর থেকে নানান সমস্যা, অনিয়ম যেন পিছু ছাড়ছেনা প্রতিষ্ঠানগুলোর। সমস্যা সমাধানে বিভিন্ন সময় আন্দোলনে নামতে দেখা গেছে সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের। এবার পেশাগত দায়িত্ব পালনে সমস্যায় পড়েছেন সাত কলেজের শিক্ষকরাও। 

১৫ ফেব্রুয়ারী সোমবার ঢাকা কলেজ শিক্ষক লাউঞ্জে সাত কলেজে কর্মরত বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের শিক্ষকদের নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় শিক্ষকদের পেশাগত এসব সমস্যা দূরীকরণে ২১ সদস্য বিশিষ্ট সেভেন কলেজ টিচার্স এসোসিয়েশন গঠন করা হয়। এতে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজের প্রফেসর মোঃ মহিউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন  ঢাকা কলেজের প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুল কুদ্দুস সিকদার। 

এছাড়াও সহ-সভাপতি হিসেবে অধ্যাপক আফরোজা বেগম রোজী (ইডেন মহিলা কলেজ), যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হিসেবে
মোঃ কামাল হায়দার (সরকারি তিতুমীর কলেজের শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক) কোষাধ্যক্ষ হিসেবে খায়রুল বাশার (ইডেন মহিলা কলেজ), প্রচার সম্পাদক হিসেবে আলমামুন রাসেল (সরকারি তিতুমীর কলেজ) দায়িত্ব পেয়েছেন। 

শিক্ষকদের অভিযোগ সম্মানী বিল পেতে নানা হয়রানি ও ভোগান্তি, প্রশ্নপত্র প্রণয়নে সমন্বয়হীনতা, উত্তরপত্র বণ্টনে বৈষম্য,প্রশ্ন প্রনয়ণ কমিটি গঠনে বৈষম্য, বিভিন্ন কাজে অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষকদেরকে অবহেলা,সাত কলেজের অধ্যাপকদের নাম ঢাবির একজন প্রভাষকের নামের নিচে রেখে কমিটি গঠন, একই ইনকোর্স নম্বর একাধিকবার পাঠানোর পরও আবার পাঠাতে বলা, কমিটি মিটিংয়ে সিটিং আ্যালাউন্স ও টিএ/ ডিএ না থাকা ইত্যাদি নানা সমস্যায় জর্জরিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষকগণ। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সেভেন কলেজ টিচার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ড. মোঃ আব্দুল কুদ্দুস সিকদার বলেন, সাত কলেজের সাধারণ শিক্ষকদের পেশাগত সমস্যার সমাধানে কাজ করবে সেভেন কলেজ টিচার্স এসোসিয়েশন। অধিভুক্তির পর থেকেই আমরা নানা বৈষম্যের স্বীকার হয়েছি। আমরা সমস্যা গুলোর সুষ্ঠু সমাধান চাই।